আন্তর্জাতিক অনলাইন ফটোগ্রাফি কনটেস্ট উদ্বোধন

আন্তর্জাতিক অনলাইন ফটোগ্রাফি কনটেস্ট শুরু
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অতিথিবৃন্দ

এশিয়ান নেটওয়ার্ক অব ইয়ুথ ভলান্টিয়ার্স (এএনওয়াইভি) আয়োজনে শুরু হলো আন্তর্জাতিক অনলাইন ফটোগ্রাফি কনটেস্ট। প্রতিযোগিতা উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ সরকারের সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। সম্প্রতি অনলাইন প্লাটফর্ম জুমের মাধ্যমে তিনি “এএনওয়াইভি আন্তর্জাতিক অনলাইন ফটোগ্রাফিক নটেস্ট ২০২০” আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। এই আয়োজনের প্রতিপাদ্য ‘সেলিব্রেট দ্য পজিটিভিটি’।

উদ্বোধনী বক্তব্যে সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বলেন, তরুণেরা ভিন্নভাবে সমাজকে দেখার চেষ্টা করে। ফলে তরুণদের চোখে বর্তমান পরিস্থিতির অন্যরূপ আমরা জানতে পারবো। আমাদের তরুণেরা ইতিবাচক পরিবর্তনে ভূমিকা রাখবে বলে আমি বিশ্বাস করি। এই ফটোগ্রাফি কনটেস্টটি একটি ভিন্নধর্মী উদ্যোগ। ভবিষ্যতে এধরনের উদ্যোগে সাংস্কৃতিক মন্ত্রণালয় এবং আমি সবধরনের সহযোগিতার মাধ্যমে পাশে থাকব।

উদ্বোধনী আয়োজনে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশের আলোকচিত্রী মুনির-উজ-জামান, ভারতের আলোকচিত্রী রোহিত ভোরহ এবং ইতালির আলোকচিত্রী লুকা লেনসিরি। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন এশিয়ান নেটওয়ার্ক অব ইয়ুথ ভলান্টিয়ার্স সোসাইটির প্রেসিডেন্ট এবং চেয়ারপার্সন অধ্যাপক রশীদুল হাসান। এছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন এশিয়ান নেটওয়ার্ক অব ইয়ুথ ভলান্টিয়ার্স সোসাইটির সেক্রেটারী শেখ ফরিদুল ইসলাম কানন, প্রতিযোগিতার সমন্বয়ক তরুণ সংগঠক, প্রযুক্তিবিদ সুলতানা রাজিয়া। অনুষ্ঠানটির সঞ্চালনায় ছিলেন নবনীতা চক্রবর্তী।

ভারতীয় আলোকচিত্রী রোহিত ভোরহ বলেন, ‘বাংলাদেশের আলোকচিত্রীরা সবসময়ই ভাল কাজ করে যাচ্ছেন। তরুণ ফটোগ্রাফারদের জন্য এই প্রতিযোগিতা দারুণ এক সুযোগ।’ এশিয়ান নেটওয়ার্ক অব ইয়ুথ ভলান্টিয়ার্স করোনা ভাইরাসের কারণে ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তার জন্য আয়োজন করেছে আন্তর্জাতিক অনলাইন ফটোগ্রাফি কনটেস্ট ২০২০।

এএনওয়াইভির প্রেসিডেন্ট এবং চেয়ারপার্সন প্রফেসর রশিদুল হাসান বলেন, ‘ছবির নিজের একটি আলাদা ভাষা আছে, যে কেউই ছবির মাধ্যমে কথা বা গল্প বলতে পারে।তরুণদের ছবির মাধ্যমে নিজের কথা বলার সুযোগ করে দিচ্ছে এই প্রতিযোগিতা।’ প্রতিযোগিতার সমন্বয়ক প্রযুক্তিবিদ, তরুণ সংগঠক ও নারী অভিযাত্রী সুলতানা রাজিয়া বলেন, ‘এই প্রতিযোগিতা দক্ষিণ এশিয়ার বিভিন্ন দেশের তরুণেরা অবরুদ্ধ বর্তমানকে কিভাবে দেখছে, কি নিয়ে ভাবছে তারই একটি চলমান দলিল। করোনা ভাইরাসে রতরুণদের মানসিক স্বাস্থ্যবিষয়ক বিভিন্ন সমস্যা কাটিয়ে আগ্রহী করে তুলতে এ আয়োজন।’

তরুণদের উৎসাহিত করতে ও চারপাশের ইতিবাচক বিষয় সম্পর্কে জানাতে আয়োজন করা হয়েছে এইফটোগ্রাফি প্রতিযোগিতা, ফটোগ্রাফি বিভিন্ন দেশের কৃষ্টি, সংস্কৃতি, জলবায়ু, জীববৈচিত্র্য তুলে ধরে পারস্পরিক সম্পর্ক উন্নয়নে বিশেষ ভূমিকা রাখে। দেশগুলোর মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক সুদৃঢ করে।প্রতিযোগিতায় বিশ্বের বিভিন্ন প্রায় ১০টি দেশ থেকে প্রায় একহাজারের বেশি হাজার আলোকচিত্র থেকে ২০০টি আলোকচিত্র প্রদর্শিত হবে এই অনলাইন প্রদর্শনীতে। নির্বাচিত আলোকচিত্র প্রদর্শিত হবে ২৭ এ জুলাই থেকে ৫ ই আগস্ট পর্যন্ত। ৭ই আগস্ট সেরা সব ফটোগ্রাফারদের নাম প্রকাশ করা হবে। প্রদর্শনী থেকে অর্জিত যাবতীয় অর্থ করোনা ক্ষতিগ্রস্থদের সাহায্যে ব্যয় করা হবে আয়োজকদের পক্ষে জানানো হয়।