আরজিনা রুমাইয়ার উপন্যাস সেই দিন সেই সময়

আরজিনা রুমাইয়ার উপন্যাস সেই দিন সেই সময়
সেই দিন সেই সময় উপন্যাসের প্রচ্ছদ এবং লেখক কাজী আরজিনা রুমাইয়া

“সেই দিন সেই সময়” উপন্যাসটির প্রধান চরিত্র নীকিতা। নীকিতার বেড়ে উঠা সম্ভান্ত্র পরিবারে। নীকিতার বাবা ছিলেন একজন বিদেশী নাগরিক,যার প্রধান কাজ ছিল পোকামাকড় নিয়ে গবেষণা করা।

সায়েম যে নীকিতার চোখের দিকে অপলকভাবে তাকিয়ে থাকে,কিন্তু ভালোবাসি কথাটা বলার সাহস সঞ্জয় করতে পারে না। এই গল্পের আরেকটি চরিত্র আমজাদ সাহেব,যিনি জমিদারি প্রথা অনুসরণ করে নিজ দখলে রাজ্য বিস্তার করতে চান।

মূলত উপন্যাসটি ভিত্তি করে আছে,একান্নবর্তী পরিবার নিয়ে। যা ভিন্ন ধর্মের প্রতি ভালোবাসা প্রদশর্ন করে। “সেই দিন সেই সময়” উপন্যাসটি প্রকাশ করেছে ঘাসফুল প্রকাশনী ।

বইটির প্রসঙ্গে লেখক কাজী আরজিনা রুমাইয়া বলেন, এ বইটি আমার প্রথম লেখা। আসলে, প্রথম বই প্রকাশ হওয়ার পরে যে একটা আনন্দ তা বলে শেষ করা যাবে না। এখনো আনন্দে মাঝেমধ্যে খুশিতে আমার চোখে পানি চলে আসে। সেই আনন্দ গুলো আমি এখনো অনুভব করতে পারি! এখনো আমার কাছে সব কিছু মনে হয়, এইতো সেইদিন।

তিনি বলেন, এই বইয়ের প্রতিটি চরিত্র এমন ভাবে সাজানো হয়েছে যে, আমি যখন উপন্যাসটা পড়ি, সব চরিত্র গুলো জীবন্ত দেখতে পাই! আমার কাছে মনে হয়, গল্পের চরিত্র গুলোর সাথে আমার অনুভূতির বিশেষ সংমিশ্রণ পরিলক্ষিত হয়! কারণ উপন্যাসটা কিছুটা আমার জীবন আর কল্পনার জগৎ মিলে লেখা হয়েছে। কিছু চরিত্রের নাম অবশ্যই বলতে হয়, আমজাদ আলী, নীকিতা,পিটার জেমান কিংবা ফরিদ মিয়া। ফরিদ মিয়া ছিলেন,বিশ্বস্ত কাজের এবং অনুগত্য লোক যা এখনকার যুগের খুবই কম দেখা যায়।