ইউনিলিভার বিজমায়েস্ট্রোস দ্য ইনক্রেডবলস

ইউনিলিভার বিজমায়েস্ট্রোস দ্য ইনক্রেডবলস
ছবিতে বিজয়ী দলের সদস্য সাদিয়া হাসান, মর্জিনা আক্তার প্রত্যাশা, সাজিদ আসবাত খন্দকার।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের দল দ্য ইনক্রেডবলস ইউনিলিভার বিজমায়েস্ট্রোস ২০২০ চ্যাম্পিয়নস ট্রফি জিতেছে। তুমুল প্রতিদ্বন্ধিতাপূর্ণ প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে দেশের ২৫টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৪৫টি দলকে হারিয়ে এই দলটি বিজমায়েস্ট্রোস ২০২০ শিরোপা লাভ করেছে। বিজয়ী দলটি লন্ডনে অনুষ্ঠিতব্য পরবর্তী ইউনিলিভার ফিউচার লিডারস লীগ (এফএলএল) নামের বৈশ্বিক প্রতিযোগিতার মঞ্চে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করবে এবং বিভিন্ন দেশের উজ্জ্বল সম্ভাবনাময় মেধাবী শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে লড়বে।

বিজয়ী দলের সদস্যরা হলেন সাদিয়া হাসান, মর্জিনা আক্তার প্রত্যাশা, সাজিদ আসবাত খন্দকার। তাঁরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের (আইবিএ) শিক্ষার্থী। বিজয়ীরা ইউনিলিভারের উদ্যোগে লন্ডনে অনুষ্ঠিতব্য ফিউচার লিডারস লীগ (এফএলএল) ২০২০ নামের বৈশ্বিক প্রতিযোগিতার মঞ্চে বিভিন্ন দেশের উজ্জ্বল ও সম্ভাবনাময় মেধাবী শিক্ষার্থীদের সাথে লড়বেন। বিজমায়েস্ট্রোস ২০২০ শিরোপাজয়ী দলটিকে ইউনিলিভার ফিউচার লিডারস’ প্রোগ্রামের (ইউএফএলপি) আওতায় সরাসরি ইউনিলভারের ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি প্রোগ্রামে অংশগ্রহন করতে পারবে। এছাড়া তাঁরা ইউনিলিভার কনজ্যুমার কেয়ার লিমিটেডের একটি প্রকল্পেও কাজ করার সুযোগ পাবেন।

বিজমায়েস্ট্রোস ২০২০ প্রতিযোগিতায় প্রথম রানার আপ হয়েছে বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) মাডব্লাাড দল। এই দলের সদস্যরা হলেন মাইশা রায়দা, তামিম ইসলাম এবং মোঃ নাফিস খান। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন ইনস্টিটিউট থেকে অহনাফ আকিফ, আদিবা হক আহোনা এবং সৈয়দা সায়মা হোসেনের সমন্বয়ে গঠিত টিম বাস-হকস দ্বিতীয় রানার্স আপের খেতাব অর্জন করেছে।

এর আগে গত ১২ নভেম্বর বৃহস্পতিবার ২০২০ ভার্চ্যুয়াল প্লাটফর্মে আয়োজিত এক জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানে বিশেষজ্ঞ বিচারক প্যানেল চূড়ান্ত পর্বের ছয়টি ফাইনালিস্ট দলের মধ্য থেকে সেরা তিন দলকে নির্বাচিত করেন। বিজ্ঞ বিচারক প্যানেলে ছিলেন ব্র্যাকের নির্বাহী পরিচালক আসিফ সালেহ, বাংলাদেশে এফএওর প্রতিনিধি রবার্ট সিম্পসন, ইউনিলিভার কনজ্যুমার কেয়ার লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কেএসএম মিনহাজ এবং ইউনিলিভার বাংলাদেশের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক কেদার লেলে।

সারা পৃথিবীর জন্যই ২০২০ সাল হচ্ছে অনিশ্চয়তাপূর্ণ যাতে চাকরির বাজারে বড় ধরনের নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে, শিক্ষা কার্যক্রম ব্যাহত হয়েছে, ব্যহত হয়েছে শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার। তবে কঠিন এই বছরেও ইউনিলিভার সমাজের প্রতি তার উন্নয়ের প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী বিজমায়েস্ট্রোস প্রতিযোগিতা আয়োজন অব্যাহত রেখেছে। বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের সত্যিকারের ব্যবসা সম্পর্কে রোমাঞ্চিত করার পাশাপাশি তাঁদেরকে ভবিষ্যতের জন্য গড়ে তোলার লক্ষ্যে আয়োজন করা হয় এই প্রতিযোগিতা। এবারে অবশ্য সংশ্লিষ্ট সবার নিরাপত্তার কথা বিবেচনায় নিয়ে প্রথমবারের মতো ভার্চ্যুয়াল প্ল্যাটফর্মে বিজমায়েস্ট্রোস আয়োজন করা হয়।

বিজমায়েস্ট্রোস ২০২০ প্রতিযোগিতাকে নতুন এক উচ্চতায় নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে এবারে নিবন্ধন করা ১৪৫টি দলের সবার জন্য সাপ্তাহিক কুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়, যাতে তাদের শেখার পরিধি আরো বিস্তৃত হয়। জাঁকজমকপূর্ন এই অনুষ্ঠানে সর্বোচ্চ স্কোরের দল হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ব্যবসা প্রশাসন ইনস্টিটিউটের (আইবিএ) টিম বাস-হকস লার্নিং চ্যাম্পিয়ান হিসেবে বিজম্যাস্ট্রোস ২০২০ বিজয়ীর মুকুট লাভ করে।

এবারে বিজমায়েস্ট্রো প্রতিযোগিতার থিম বা প্রতিপাদ্য ছিল ‘পাওয়ার দ্য ফিউচার’। প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীদের চ্যালেঞ্জের মধ্যে ভবিষ্যতের সুযোগ গুলোকে ব্যবহার করে ব্যবসায়িক কার্যক্রমের কিভাবে উন্নীত করা যায় তা নিয়ে কাজ করার সুযোগ করে দিয়েছে। এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণেচ্ছূদের জন্য সরাসরি নিবন্ধনের দিন ছিল গত ৪ অক্টোবর ২০২০। বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ফাইনাল ইয়ারের প্রতি ৩ জন শিক্ষার্থী একেকটি দল হিসেবে ইউনিলিভারের জন্য তিনটি করে বড় বিজনেস আইডিয়া বা ব্যবসায়িক ধারণাসহ নিবন্ধন করেন। এসব আইডিয়া বা ধারণা ছিল বাংলাদেশের কল্যাণ ও স্বাস্থ্য খাতের উন্নয়ন ভিত্তিক। এরপর অংশগ্রহণকারী দলগুলো ভিডিওর মাধ্যমে তাদের উদ্ভাবিত সলিউশন বা সমাধানগুলো জমা দেয়। সলিউশন বা সমাধানগুলো পূঙ্খানুপূঙখ মূল্যায়ণের মাধ্যমে তাদের মধ্য থেকে ৩০টি দলকে সেমিফাইনালের জন্য মনোনীত করা হয়।

সেমিফাইনাল পর্বের থিম ছিল ‘চ্যানেলস অব দ্য ফিউচার’। এই পর্যায়ে প্রতিযোগীদের ব্যাবসার বিকাশ ও ক্রেতাদের উন্নত সেবা প্রদানের সলিউশন বা সমাধান বের করার চ্যালেঞ্জ দেওয়া হয়।

সেমিফাইনালের শীর্ষ ছয় দল গ্র্যান্ড ফিনালেতে উন্নীত হয়। দলগুলো হচ্ছে- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইবিএর ইসিলদুর’স বানে, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) নর্দার্ন লাইট, ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির সনিক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইবিএ’র টিম বাস হকস, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) টিম মাডব্লাড এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইবিএ’র দ্য ইনক্রেডিবলস।

ফাইনালের প্রতিযোগীদের গ্র্যান্ড ফিনালেতে উত্তীর্ণ হওয়ার জন্য ইউনিলিভারের নিউট্রিশন পোর্টফলিওর আলোকে হেলথ অ্যান্ড নিউট্রিশন বা স্বাস্থ্য ও পুষ্টি-বিষয়ক সলিউশন বা সমাধান উদ্ভাবনের চ্যালেঞ্জ দেওয়া হয়।

গোটা প্রতিযোগিতাজুড়েই অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের জন্য বেশ কয়েকটি লার্নিং সেশনের আয়োজন করা হয়, যাতে তাঁরা সঠিকভাবে বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ অনুধাবন ও ব্যবসায়িক ধারণাগুলো রপ্ত করে নিজ নিজ প্রচেষ্টায় সমাধান বের করতে পারেন। ফাইনালে উত্তীর্ণ প্রতিটি দলের মেন্টর হিসেবে কাজ করেন ইউনিলিভার বাংলাদেশের অভিজ্ঞ ও সিনিয়র ম্যানেজারগণ। এসব সিনিয়র ম্যানেজারদের সুদক্ষ নির্দেশনায় প্রতিযোগীরা সলিউশন বা সমাধান উদ্ভাবনের জন্য তৈরি হয়ে ওঠেন।

ফাইনালের শীর্ষ ছয় দল থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইবিএ শিক্ষার্থীদের দল দ্য ইনক্রেডিবল ইউনিলিভার বিজমায়েস্ট্রোস ২০২০ চ্যাম্পিয়নস ট্রফি অর্জন করে।