এইচএসসির অ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়ন করবেন বিষয়ভিত্তিক শিক্ষকরা

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর (মাউশি)
ফাইল ছবি

জেনারেশন রিপোর্ট

২০২১ সালের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য অ্যাসাইনমেন্ট বিষয়ভিত্তিক শিক্ষকদের মূল্যায়নের নির্দেশনা দিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর (মাউশি)। সোমবার (৯ আগস্ট) মাউশির ওয়েবসাইটে এ সংক্রান্ত নির্দেশনা দেওয়া হয়।

এতে বলা হয়, জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি) কর্তৃক প্রণীত ২০২২ সালের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের প্রতি শাখার নৈর্বাচনিক তিনটি বিষয়ে অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রম চলমান আছে। শিক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়নের ক্ষেত্রে শিক্ষকদের আটটি নির্দেশনা মেনে মেনে চলতে হবে।

শিক্ষার্থীর প্রস্তুতকৃত অ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়নের ক্ষেত্রে সামঞ্জস্য ও স্বরূপ আনতে শিক্ষকদের প্রতিটি অ্যাসাইনমেন্টের জন্য প্রণীত মূল্যায়ন নির্দেশনা (রুব্রিক্স) অনুসরণ করতে হবে।

রুব্রিক্স অনুসরণ করে পরীক্ষার্থীরাও যাতে তাদের অ্যাসাইনমেন্টগুলো প্রস্তুত করতে পারে সে বিষয় ও নির্দেশনা প্রদান করতে হবে।

অ্যাসাইনমেন্টগুলোর বিষয়ের প্রকৃতি, চাহিদা, পরিসর, ধাপ, চিন্তার ব্যাপকতা এবং শিক্ষার্থীর লেখার মধ্যে সৃজনশীলতা ও মৌলিক বিষয় ইত্যাদি যথাযথভাবে মূল্যায়নের জন্য প্রতিটি বিষয়ের প্রতিটি অ্যাসাইনমেন্টের জন্য ভিন্ন ভিন্ন রুব্রিক্স সংযোজন করতে হবে।

রুব্রিক্সে প্রতিটি মূল্যায়ন নির্দেশকের জন্য পারদর্শিতার মাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। গানের ক্ষেত্রে প্রতিটি নির্দেশক এর জন্য আলাদা আলাদা নম্বর প্রদান করে মোট প্রাপ্ত নম্বর নির্ধারণ করতে হবে।

ছকে মূল্যায়নকারী শিক্ষকের নাম ও স্বাক্ষর তারিখ থাকতে হবে।

অ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়নের ক্ষেত্রে কোনো প্রকার অবহেলা, অতিমূল্যায়ন বা অবমূল্যায়ন করা যাবে না।

অ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়নের ক্ষেত্রে ভেতরে সবল অংশে কালো কালি এবং দুর্বল অংশ লাল কালি দিয়ে চিহ্নিত করতে হবে।

মুখস্থ করে বা হুবহু পাঠ্যপুস্তক থেকে লিখে অ্যাসাইনমেন্ট তৈরি না করে পাঠ্যপুস্তকের অর্জিত জ্ঞান, দক্ষতা কাজে লাগিয়ে শিক্ষার্থী চিন্তা-ভাবনা কল্পনাশক্তি, অনুধাবন, ক্ষমতা, উদ্ভাবনী ক্ষমতা, সৃজনশীল ও নান্দনিক দক্ষতাকেই মূল্যায়নের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দিতে হবে।