করোনায় অনলাইন পরীক্ষা: রিপোর্টের অপেক্ষায় মন্ত্রণালয়

নিজস্ব প্রতিবেদক
বিশ্বব্যাপী করোনার কারণে এক বছরের বেশি সময় ধরে বন্ধ দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। দীর্ঘ এই ক্ষতি পুষিয়ে নিতে চলছে আলোচনা-গবেষণা। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে কিভাবে অনলাইনে পরীক্ষা নেওয়া হয়, সে বিষয়ে ইতোমধ্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আলাদা দুটি কমিটি কাজ করছে। মাধ্যমিক স্তরের কমিটি এরই মধ্যে এক দফা বৈঠক করেছে। দুই কমিটির প্রতিবেদন পেলে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

কমিটির সদস্য ও মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক (কলেজ ও প্রশাসন) প্রফেসর শাহেদুল খবির চৌধুরী একটি গণমাধ্যমকে বলেন, ‘শেষ বৈঠকে কমিটির সদস্যরা অনলাইন পরীক্ষার নানা দিক নিয়ে আলোচনা করেছেন। বিদেশে অনলাইনে বিভিন্ন পরীক্ষা কিভাবে নেওয়া হয় এবং বাংলাদেশে নিলে কী চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হবে, তা যাচাই-বাছাই করে একটি প্রতিবেদন দেবে কমিটি। প্রতিবেদনের ভালো-মন্দ দিকগুলো দেখে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। শিগগিরই দ্বিতীয় বৈঠক ডাকা হবে।’

অন্য দিকে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের বিভিন্ন পরীক্ষা অনলাইনে নেওয়ার সক্ষমতা যাচাই করার কমিটি আগামী ২৫ এপ্রিল সভা ডেকেছে। বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের কমিটির আহ্বায়ক ও বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সদস্য প্রফেসর ড. দিল আফরোজা বেগম একটি গণমাধ্যমকে বলেন, ‘লকডাউনের কারণে বৈঠক ডেকেও বসা সম্ভব হয়নি। আগামী ২৫ এপ্রিল প্রথম সভা ডাকা হয়েছে। কমিটির প্রয়োজনে চারটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪ জনকে নতুন করে কো-অপ্ট (যোগ) করেছি।’

ড. দিল আফরোজা বেগম আরও বলেন, ‘দেশ-বিদেশে কিভাবে অনলাইনে পরীক্ষা নেওয়া হয়। বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে তা কতটুকু সম্ভব, বিশেষজ্ঞদের তার একটি প্রতিবেদন নিয়ে আসতে বলা হয়েছে।’ তাদের সুপারিশের আলোকে পরবর্তী সিদ্ধান্ত হবে বলে তিনি জানান।