চিঠি উৎসব মেঘপিয়নের ফল প্রকাশ

চিঠি উৎসব মেঘপিয়নের ফল প্রকাশ

ঘরবন্দী দিনগুলিতে পত্র সাহিত্যকে ফিরিয়ে আনার ক্ষুদ্র প্রয়াস হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হিমু পরিবহণ আয়োজন করেছে মাসব্যাপী আন্তর্জাতিক অনলাইন চিঠি উৎসব ‘মেঘপিয়ন’। বিশ্বের সকল বাংলা ভাষাভাষীর মনের খোরাক জোগাতে তাদের এই প্রচেষ্টা বলে জানান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হিমু পরিবহণের সভাপতি শাসসুন নাহান সোমা।
বিগত একমাসে চিঠি সংগ্রহ, বাছাই শেষে প্রকাশিত হলো সেরা ৫ চিঠিদাতার নাম। এই আয়োজনের সেরা চিঠির তালিকায় স্থান পেয়েছেন সাজ্জাদ হোসেন বাপ্পী,আফরা জামান,কাজী সানজিদা আক্তার নদী,মোঃ ইমাম হোসেন এবং সাদমান সাকিব।

বিচারক প্যানেলটি দুভাগে বিভক্ত ছিলো। প্রাথমিক বিচারক প্যানেলে ছিলেন, সুমাইয়া জান্নাত সুপ্তি, ফাতেমা তুজ জোহরা, তুষার চৌধুরী, নায়েবা রিফাত রৌশনি, জয়নব খাতুন এবং ইশতিয়াক মাঈনুদ্দিন ইমু। চূড়ান্ত পর্যায়ে বিচারক প্যানেলে ছিলেন, সিমাব নজীর আহমদ, শরাফত হোসেন, সাইফুল ইসলাম সোহেল, রাফিয়া মাহ্জাবীন এবং সৈয়দ মিজানুর রহমান।

আন্তর্জাতিক অনলাইন চিঠি উৎসব মেঘপিয়নে অংশ নেয়া সাজ্জাদ বাপ্পী জানান,মায়ের কাছে চিঠি লেখার অনুভূতি সত্যি অন্যরকম। চিঠি জমা দেয়ার সময়ও ভাবিনি আমার চিঠি সেরা পাঁচে নির্বাচিত হবে। আসলে আমাদের ঐতিহ্যের স্বরূপ স্বন্ধানে হিমু পরিবহণের আয়োজনে ভালো লাগা থেকেই যুক্ত হতে চেয়েছি। ধন্যবাদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হিমু পরিবহণকে এই কঠিন সময়ে এমন একটি ভিন্ন আয়োজনে আমাদের সম্পৃক্ত হতে সুযোগ করে দেয়ার জন্য।

অংশগ্রহণকারী কাজী সানজিদা জানান, আজ আমার জন্মদিন, আর এরকম দিনে আমার চিঠি সেরা পাঁচে নির্বাচিত হয়েছে, এই সংবাদ শুনে আমার খুব ভালো লাগছে। আমার জন্মদিনকে বিশেষ করে তোলার জন্য আয়োজকদের ধন্যবাদ।

পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস খুললে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হিমু পরিবহণের সাধারণ সম্পাদক নাদিয়া মোমেন।

আগামী ১৯ জুলাই ২০২০ হুমায়ূন আহমেদের প্রয়াণ দিবসে নির্বাচিত চিঠি সমূহ নিয়ে মেঘপিয়ন এর অনলাইন পিডিএফ সংখ্যা প্রকাশ করা হবে। এই আয়োজনে সহযোগী হিসেবে যুক্ত আছেন প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান অন্বেষা প্রকাশন।