প্রাথমিক শিক্ষকদের পরিচয়পত্র ইস্যুর নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও কর্মচারীদের আইডি কার্ড ইস্যুর নির্দেশ দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর। করোনার সময় জরুরি প্রয়োজনে ব্যবহারের জন্য এই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বুধবার (২১ এপ্রিল) প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর এই নির্দেশ দেয়।

নির্দেশনায় বলা হয়, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মচারীদের দৈনন্দিন চলাচলসহ বিভিন্ন কাজে দাপ্তরিক পরিচয়পত্রের ব্যবহার হয়। দাপ্তরিক পরিচয়পত্র না থাকায় সংশ্লিষ্টদের নানা রকমের সমস্যায় পড়তে হয়। এই অবস্থায় কর্মরত সব শিক্ষক ও কর্মচারীকে দাপ্তরিক পরিচয়পত্র দেওয়া এবং কর্মক্ষেত্রসহ দৈনন্দিন চলাচলে এর ব্যবহার নিশ্চিত করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা করতে হবে।

বিভাগীয় উপপরিচালক, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার, পিটিআইয়ের সুপারিনটিনডেন্ট, উপজেলা-থানা শিক্ষা অফিসার এবং ইউআরসি ইনস্ট্রাক্টরদের এই নির্দেশ দেওয়া হয়।

পরিচয়পত্র দেওয়া ও ব্যবহারের শর্ত

১. প্রধান ও সহকারী শিক্ষকদের পরিচয়পত্র ইস্যু করবেন সংশ্লিষ্ট উপজেলা-থানা শিক্ষা অফিসার।

২. অফিস প্রধানরা তার অফিসে কর্মরত সকলের এবং প্রযোজ্য ক্ষেত্রে তার অধস্তন অফিস প্রধানের পরিচয়পত্র দেবেন।

৩. কর্মস্থল ও বাসস্থানের বাইরে দৈনন্দিন কাজে সার্বক্ষণিক পরিচয়পত্রসহ চলাফেরা করবেন।

৩. বিষয়টি অতীব জরুরি বলে উল্লেখ করা হয় নির্দেশনায়।

সারাদেশে অভিন্ন পরিচয় পত্র ইস্যুর জন্য এমটি নমুনাও পাঠানো হয় বিভাগীয় উপ-পরিচালক, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার, পিটিআইয়ের সুপারিনটিনডেন্ট, উপজেলা-থানা শিক্ষা অফিসার এবং ইউআরসি ইনস্ট্রাক্টরদের কাছে। পরিচয়পত্রের নমুনায় ছবি সম্বলিত অংশে পদবীসহ শিক্ষক ও কর্মচারীর নাম, বিদ্যালয়ের নাম, জেলা ও থানার নাম উল্লেখ থাকতে হবে।

পরিচয়পত্রের বিপরীত অংশে শিক্ষক-কর্মচারীর নাম, বিদ্যালয়ের নাম, জেলা ও থানার নাম, জন্ম তারিখ, ব্যক্তিগত মোবাইল নম্বর, রক্তের গ্রুপ, জরুরি যোগযোগকারীর নাম, পদবী ও মোবাইল নম্বর, উপজেলা-থানার নাম উল্লেখ থাকবে।