প্রাথমিক শিক্ষক মারা গেলে সন্তানের দায়িত্ব নেবে ট্রাস্ট

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর (ডিপিই)

জেনারেশন রিপোর্ট

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কোনও শিক্ষক মারা গেলে তার নাবালক, প্রতিবন্ধী বা বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন সন্তানের দায়িত্ব নেবে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক কল্যাণ ট্রাস্ট।

মৃত শিক্ষকের সন্তানরা এই ট্রাস্ট থেকে আর্থিক সহায়তা পাবেন- এমন বিধান রেখে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক কল্যাণ ট্রাস্ট আইন, ২০২১ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

সোমবার (৯ আগস্ট) মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এ আইনের খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি এবং সচিবালয় থেকে মন্ত্রিসভার অন্য সদস্যরা অনলাইনে যুক্ত ছিলেন।

মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম এক প্রেস ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান।

তিনি জানান, সরকারি প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তি অনুদান হিসেবে কিছু দিলে ট্রাস্ট তা গ্রহণ করতে পারবে। বিধি দিয়ে বিষয়গুলো নির্ধারণ করে দেওয়া হবে।

১৯৯৫ সালের আগের অধ্যাদেশকে বদলে নতুন এই আইন করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

তিনি আরও জানান, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক হবেন ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান। অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক ট্রাস্টির ভাইস চেয়ারম্যান হবেন। ট্রাস্টি বোর্ডে আটজন সদস্য তিন বছরের জন্য দায়িত্ব পালন করবেন। এককালীন চাঁদা দিয়ে প্রাথমিকের শিক্ষকদের এই ট্রাস্টির সদস্য হতে হবে। শিক্ষকদের পাশাপাশি তাদের পোষ্যরা এখান থেকে সুবিধা পাবেন।