শিক্ষা মন্ত্রণালয় প্রস্তুত হচ্ছে ৪র্থ শিল্পবিপ্লবের সঙ্গে মানিয়ে নিতে

নিজস্ব প্রতিবেদক
শিক্ষা মন্ত্রণালয়
শিক্ষা মন্ত্রণালয়। ফাইল ছবি

চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের সঙ্গে মানিয়ে নিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় প্রস্তুত হচ্ছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। রোববার (৬ ডিসেম্বর) মতিঝিলে এফবিসিসিআই আইকন টাওয়ারে ‌‘এফবিসিসিআই টেক সি’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন তিনি।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনের ৫০ বছর পূর্তি উদযাপনকে সামনে রেখে এটি চালু করা হচ্ছে, যা এফবিসিসিআই ইমপ্যাক্ট ৪.০ (২০২০)-এর অংশ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এফবিসিসিআই’র এই উদ্যোগ ডিজিটাল বাংলাদেশের সঙ্গে সমন্বয় রয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ও ৪র্থ শিল্পবিপ্লবের সঙ্গে মানিয়ে নিতে নিজেকে প্রস্তুত করছে। প্রযুক্তি, সহযোগিতা, বিশ্বায়নের ধারণার মাধ্যমে আমাদের এগিয়ে নেয়ার জন্য আজকের এই উদ্যোগ দেখে আমি অত্যন্ত আনন্দিত।

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, অগ্রগামী ও দূরদর্শী চিন্তার জন্য আমি এফবিসিসিআইকে অভিনন্দন জানাই। আরও অভিনন্দন জানাই এফবিসিসিআই টেক সি-এর সফল উদ্বোধনের জন্য। ভিশন ২০২১, ২০৪১ এবং বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা ভিশন অর্জনের জন্য তথ্যপ্রযুক্তি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। তথ্যপ্রযুক্তির বিকাশ আমাদের জাতীয় অর্থনীতির সমৃদ্ধিতে অবদান রাখবে। এজন্য আমাদের সমৃদ্ধ ও উদ্ভাবনী প্রযুক্তি খাতের প্রয়োজন।

স্বাগত বক্তব্যে এফবিসিসিআইয়ের প্রেসিডেন্ট শেখ ফজলে ফাহিম বলেন, জাতি হিসেবে আমাদের ভবিষ্যৎ উন্নয়ন, অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি, প্রবৃদ্ধি ও প্রতিযোগিতামূলক বাজারে সক্ষমতা নির্ভর করছে প্রযুক্তি খাতের বিকাশ এবং উদ্ভাবনশীলতার ওপর। ডাটা নির্ভর উদ্ভাবন দেশজুড়ে ব্যবসায়ী উদ্যোগের সফলতার ভিত্তি। বিশ্বজুড়ে প্রযুক্তি রাজত্ব করলেও গতানুগতিক সংস্কৃতি এবং অর্থনৈতিক খাতে এর ব্যবহার গ্রহণযোগ্যতা এবং ব্যবহার এখনো বেশ ধীর। তবে কোভিড-১৯ জনিত উদ্ভত পরিস্থিতিতে বিশ্বজুড়ে ডিজিটালাইজেশনের বড় ধরনের জোয়ার এসেছে।এর ফলে শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও অর্থসংক্রান্ত খাতগুলো প্রযুক্তির সর্বোচ্চ সুবিধা নিতে ডিজিটালাইজেশনের দিকে ঝুঁকে পড়েছে।

এফবিসিসিসিআইয়ের উপ-প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এস এম ফেরদৌস (অব.)-এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে ‘টেক সি’ নিয়ে প্রেজেন্টেশন দেন এফবিসিসিআইয়ের উপদেষ্টা সোনিয়া বশির কবির, ইউনিভার্সিটি অব টরেন্টোর অন্টারিও ইনস্টিটিউট ফর স্টাডিজ ইন এডুকেশনের (ওআইএসই) এলিজাবেথ রিজ জনস্টোন, ওআইএসই’র কন্টিনিউইং অ্যান্ড প্রফেশনাল লার্নিংয়ের অ্যাসোসিয়েট ডিরেক্টর (ইন্টারন্যাশনালাইজেশন অ্যান্ড ইনোভেশন) মাইকেল ক্যাসিডি, অ্যাক্সিলারেটিং এশিয়ার সহপ্রতিষ্ঠাতা আমরা নাইডু এবং ম্যাসাচুয়েট ইনস্টিটিউট অব টেকনোলোজির (এমআইটি) সিনিয়র অফিসার শ্যারন বর্ট।