সব স্কুল-কলেজে জাতীয় শোক দিবস পালনের নির্দেশ

শেখ মুজিবুর রহমান

জেনারেশন রিপোর্ট

আগামী ১৫ আগস্ট দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জাতীয় শোক দিবস পালনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির সিদ্ধান্তের আলোকে দিবসটি পালনের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

বুধবার (৪ আগস্ট) মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ থেকে এই নির্দেশনা জারি করা হয়।

এর আগে গত ২৫ জুলাই শিক্ষা মন্ত্রণালয় জাতীয় শোক দিবসে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং ১৫ আগস্টের শহীদদের প্রতি সম্মান জানাতে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর দৃশ্যমান স্থানে ১ আগস্ট থেকে ড্রপডাউন ব্যানার টানানোর নির্দেশ দিয়েছিল।

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, দেশের সরকারি, আধাসরকারি, স্বায়ত্তশাসিত, স্থানীয় সরকার, শিক্ষা ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ভবনে ড্রপডাউন ব্যানার টানানোর সরকারি নির্দেশনা দিয়েছিল শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

ড্রপডাউন ব্যানার কী রকম হবে সে বিষয়ে চিঠিতে বলা হয়েছে, ড্রপডাউন ব্যানারটি ভবনের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ মাপ অনুযায়ী ভবনের সামনে দৃশ্যমানভাবে লাগানোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা এবং ওয়েবসাইটে (mujib100.gov.bd) দেওয়া ড্রপডাউন ব্যানারের নমুনার আলোকে প্রস্তুত করতে হবে। ব্যানারে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি থাকবে। স্থান সংকুলান সাপেক্ষে ১৫ আগস্টের সব শহীদদের ছবি ব্যবহার করা যাবে। ব্যানারে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং ১৫ আগস্টের শহীদদের ছাড়া অন্য কোনো ছবি ব্যবহার করা যাবে না।

ড্রপডাউন ব্যানারের ওপরে বাম পাশে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর লোগো, মাঝখানে বাংলাদেশ সরকারের লোগো (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে) এবং ডান পাশে মুজিববর্ষের লোগো ব্যবহার করা যাবে। তবে ব্যানারের নিচে প্রতিষ্ঠানের নাম লোগোসহ (যদি থাকে) ব্যবহার করা যেতে পারে। ব্যানারে স্থান সংকুলান সাপেক্ষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কোনো ভাষণের উদ্ধৃতি, দিবসের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ কোনো উদ্ধৃতি বা কবিতার পংক্তি ব্যবহার করা যেতে পারে।

চিঠিতে আরও বলা হয়েছে, ১৫ আগস্টের সকল শহীদদের প্রতি যথাযথ সম্মান প্রদর্শনে বর্ণিত নির্দেশনার আলোকে ১ আগস্ট থেকে সব সরকারি, আধাসরকারি, স্বায়ত্তশাসিত, স্থানীয় সরকার, শিক্ষা ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ভবনে ড্রপডাউন ব্যানার ব্যবহারের ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বলা হলো।